কেউ বল্টুরে চুম্মা দে

কেউ বল্টুরে চুম্মা দে
বল্টু গেলো একটা সিম কোম্পানীর
হেড অফিসে ,
সরাসরি ডিরেক্টরের
কাছে গিয়ে বলল, “আপনার এই
অফিসে মোট কত জন লোক কাজ
করে??”
ডিরেক্টর বলল, “১৫০ জন… কিন্তু
কেন ?”
বল্টু বলল, “আমি একটি হোটেল
খুলেছি…. আপনাদের একদিন দুপুরে
ভাত খাওয়াতে চাই।”
ডিরেক্টর বলল, “কত টাকা লাগবে?”
বল্টু বলল, “ফ্রিতে আপনাদের
একদিন ভাত খাওয়াবো!”
তার পর বল্টু ফিস ফিস করে কী যেন বলল,
ডিরেক্টর তা ঠিক মতন শুনতে
পেলো না ।
ডিরেক্টর সেইদিকে আর খেয়াল
করল না…..একদিন ফ্রি খাবারের কথা
শুনেই মহা খুশি।
তো বল্টুকে বলল,
কালকেই যেন সে খাবার দেয়। বল্টু
তারা কী কী খাবে, বল্টু তা জিজ্ঞেস করে
চলে গেলো।পরের দিন সময় মত
খাবার নিয়ে এলো সবার খাওয়ার
শেষে বল্টু ডিরেক্টরের কাছে একটি
বিল নিয়ে গেলো,
ডিরেক্টর বলল, “বিল কীসের? আপনি তো
ফ্রি খাওয়াবেন বলেছিলেন।”
বল্টু বলল, “আমি আপনাকে ভাত
ফ্রিতে খাওয়াবো বলেছি। কিন্তু
তরকারির জন্য টাকা লাগবে বলেছি।”
ডিরেক্টরের মনে হল তখন যে বল্টু ফিস
ফিস করে যে কথা বলেছিলো, সেটা
সে শুনতে পায়নি।ডিরেক্টর বলল,”
আপনি তরকারির দাম লাগবে সেটা
এত আস্তে বলেছেন, সেটা শুনতে
পারিনি। তো আপনার টাকাটা
দিবোনা।”
বল্টু বলল, “আমার লগে মজা লছ???
তোরা এত বড় পোষ্টারে এত বড়
বড় কইরা অক্ষর দিয়া অফারের কথা
লেখোছ আর কোণার ভিতর ছোট
কইরা লেখছ, শর্ত প্রযোজ্য। হেইডা
কিছু হয়না আর আমি আস্তে কইরা
কইছি তরকারির দাম লাগবো হেয়ার
লেগা টাকা দিবি না?? ???? টাকা দে,
নাইলে
পুলিশের কাছে যামু!!”

ডিরেক্টর বেচারা অসহায়ের মত
কোমায় চইলা গেলো |

You may also like...

Skip to toolbar