Menu

নারীর শারীরিক সৌন্দর্য গ্রহণ সম্পর্কে কী বলে ইসলাম?

0 Comments

নারীদেরকে আল্লাহ তাআলা অত্যন্ত সুন্দর করে অত্যন্ত যত্ন করে সৃষ্টি করেছেন। তাই নারীর উচিত আল্লাহ তাআলা প্রদত্ত সৌন্দর্যকে ধরে রাখা। আর এই সৌন্দর্যকে ধরে রাখতে হলে নারীকে অবশ্যই আল্লাহ তাআলার শেখানো পথে শরীরের যত্ন নিতে হবে।

নারীরা তাদের শরীর ও নারীত্বের সাথে উপযোগী সৌন্দর্য গ্রহণ করবে।

নারীদেরকে অবশ্যই তাদের চুল, নখ, হাত, পা, ও শরীরের বিশেষ যত্ন নিতে হবে।

নখ কাটা বরং নিয়মিত নখ কাটা সকল আহলে ইলমের ঐকমত্যে বিশুদ্ধ সুন্নত এবং হাদীসে বর্ণিত মনুষ্য স্বভাবের দাবি এটিই।

অধিকন্তু নখ কাটা সৌন্দর্য ও পরিচ্ছন্নতা এবং নখ না-কাটা বিকৃতি ও হিংস্র প্রাণীর সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ ।

অনেক সময় লম্বা নখের অভ্যন্তরে ময়লা জমে তাই সেখানে পানি পৌঁছায় না।

কতক মুসলিম নারী কাফেরদের অনুকরণ ও সুন্নত না-জানার কারণে নখ লম্বা রাখার অভ্যাস গড়ে তুলেছে যা অবশ্যই পরিত্যাজ্য।
নারীর বগল ও নাভির নিচের পশম দূর করা সুন্নত ।

কারণ, হাদীসে তার নির্দেশ রয়েছে, এতেই তাদের সৌন্দর্য ।

তবে উত্তম হচ্ছে প্রতি সপ্তাহ পরিচ্ছন্ন হওয়া, অন্যথায় চল্লিশ দিনের ভেতর অবশ্যই পরিচ্ছন্ন হওয়া । [মুসলিম নারীর বিধান]
লেখকঃ মাওলানা মনযূরুল হক

Tags: , , , , ,
Skip to toolbar