মহানবীর এক গল্পে আবু বকর (রা) কাঁদলেন

মহানবীর (সা) চির বিদায়ের পাঁচ দিন আগের কথা।

সেদিন মহানবীর (সা) পীড়ার তীব্রতা খুবই বৃদ্ধি গেল। রোগ-যন্ত্রণায় তিনি অস্থির।

কিন্তু এর মধ্যেও তিনি তাঁর শেষ কথাগুলো মানুষকে জানাবার জন্য ব্যস্ত।

তিনি সেখানে উপস্থিত মুসলিম নর-নারীদের উদ্দেশ্য করে বললেন,

“তোমাদের আগের জাতিগুলো তাদের পরলোকগত নবী ও বুজুর্গদের কবরগুলোকে উপাসনালয়ে পরিণত করেছে।

সাবধান! তোমরা যেন এই মহাপাপে নিজেদের লিপ্ত করো না।

খৃস্টান ও ইহুদীরা এই পাপে অভিশপ্ত হয়েছে।

দেখ, আমি নিষেধ করছি আমি আমার দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছি।

আমি তোমাদেরকে সুস্পষ্টভাবে নিষেধ করে যাচ্ছি, সাবধান আমার কবরকে সিজদাগাহ বানাবে না।

আমার এই চরম অনুরোধ অমান্য করলে তজ্জন্য তোমরাই আল্লাহর নিকট দায়ী হবে।

হে আল্লাহ, আমার কবরকে ‘পূজাস্থলে’ পরিণত করতে দিও না।”

আর একদিনের কথ।

অসুস্থ মহানবী (সা) মসজিদের মিম্বরে আরোহণ করলেন।

সকলের উদ্দেশ্যে বললেন, “আল্লাহ তাঁর একজন দাসকে দুনিয়ার সমস্ত সম্পদ দান করলেন।

কিন্তু সে দাস তা গ্রহণ না করে আল্লাহকে গ্রহণ করলো।”

এই কথা শ্রবণ করে আবুবকর (রা) কাঁদতে শুরু করলেন।

আবুবকর (রা-এর কান্না দেখে অনেকে বলাবলি করতে লাগল, বৃদ্ধের হঠাৎ আজ কি হলো!

আল্লাহর নবী একজন লোকের গল্প বলছেন, আর উনি কেঁদে আকুল হচ্ছেন!

এ যে ছিল মহানবীর আশু বিদায়ের ইঙ্গিত, তা অনেকেই বুঝতে পারেননি।

You may also like...

Skip to toolbar