সূরা ইখলাসের ফজিলত ও বরকত

১. সুরা ইখলাস কুরআন শরীফের সবচেয়ে সম্মানিত সুরার মধ্যে একটি। যে ব্যক্তি একবার সূরা ইখলাস পাঠ করবে সেই ব্যক্তি কুরআনুল কারীম এক তৃতীয়াংশ পাঠ করার সওয়াব লাভ করবে।
২. যে ব্যক্তি দশবার পাঠ করবে আল্লাহ্ তায়ালা নিজ কুদরতি হাতে জান্নাতের মধ্যে বিশেষ মর্যাদাশীল একটি মহল তৈরি করবেন।
৩. যে ব্যক্তি অধিক পাঠ করবে আল্লাহ তায়ালা তার জন্য জান্নাত ওয়াজিব করে দিবেন।
৪. যে ব্যক্তি অধিক পরিমাণ পাঠ করবে আল্লাহ তায়ালা তাঁর লাশ বহন করার জন্য হয়রত জিবরাঈল (আঃ) এর সাথে সত্তর হাজার ফেরেশতা প্রেরন করবেন। সেই ফেরেশতারা তাঁর লাশ বহন করবে এবং জানাজায় শরিক হবে।

রাসুল (সাঃ) এর সময় একবার এক এলাকার একজন ইমাম সাহেবের নামে বিচার এল। বিচারের দাবী ছিল যে সেই সাহাবী প্রতি ওয়াক্ত নামাজে শুধু সুরা ইখলাস পড়ত। এই প্রসঙ্গে সেই সাহাবীকে তিনি জিজ্ঞেস করলে সাহাবা উত্তরে বললেন হে আল্লাহর রাসুল (সাঃ) সুরা ইখলাসে আল্লাহর শ্রেষ্ঠত্ব
এমনভাবে বর্নিত আছে যে এই সুরা আমার অনেক ভাল লাগে। তাই আমি সব নামাজে এই সুরা পড়ি। এই কথা শুনে আল্লাহ রাসুল (সাঃ)
কিছু বলার আগেই আল্লাহ বলে পাঠালেন যে শুধু তার সুরা ইখলাসের প্রতি এই ভালবাসাই
তার জন্য জান্নাত নিশ্চত করে দিয়েছে।

সুবহানাল্লাহ

আল্লাহ আমাদের জানার এবং বুঝার ও আমল করার তৌফিক দান করুন।

You may also like...

Skip to toolbar