সূরা ফালাক ও নাসের এগারোটি আয়াতের তত্ত্ব

একবার নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কঠিন অসুখে পড়লেন। একরাতে স্বপ্নে দেখলেন, দুজন ফেরেশতা এসেছেন। একজন বসেছেন তাঁর শিয়রে, আর একজন পায়ের কাছে। দুজনের মধ্যে কথোপকথন শুরু হলো এভাবে- এঁর কী হয়েছে? ইনি অসুস্থ। কি অসুখ? যাদুগ্রস্ততা। কে যাদু করেছে? ইহুদি ‘লাবীদ ইবনে আসাম’। কীভাবে?

চামড়ার ফিতায় যাদুমন্ত্র করে পাথর চাপা দিয়ে রেখে দেওয়া হয়েছে অমুক কূপে। যাও সেটিকে বের করে আগুন দিয়ে জ্বলিয়ে দাও। নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের ঘুম ভেঙ্গে গেলে। সকালবেলা নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কয়েকজন সাহাবীকে কথিত কূপে পাথরচাপা দিয়ে রাখা যাদুকৃত ফিতাটি উদ্ধার করে আনতে বললেন।

দেখাগেল, ফিতাটির মধ্যে একটি সূতা পেঁচানো রয়েছে। সুতাটিতে রয়েছে এসারাটি গিঁট। এ ঘটনার পেক্ষিতে সূরা ফালাক ও সূরা নাস অবতীর্ণ হয়েছে। সূরাদ্বয়ের আয়াত সংখ্যা এগারো। নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম একটি করে আয়াত পড়তে লাগলেন। সঙ্গে সঙ্গে খুলে যেতে লাগল একটি করে গিঁট। সূরা দুটি শেষ করার সঙ্গে সঙ্গে সমস্ত গিঁট খুলে গেল। ওদিকে নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ও সুস্থ হয়ে উঠলেন।
[সূত্র- তাফসীরে মাযহারী]

You may also like...

Skip to toolbar