হযরত ওমর (রাঃ) এবং তাঁর ওয়াদা

খলিফা হযরত ওমর (রাঃ) এর সময়কার একটি ঘটনা
পারস্যের নিহাওয়ান্দ প্রদেশের শাসনকর্তা হরমুযানপর পর অনেকগুলো যুদ্ধেমুসলমানদের বিরুদ্ধে লড়বার পর এবং অগনিত মুসলমানকে নিজ হাতে হত্যা করার পরতিনি অবশেষে মুসলমানদের হাতে বন্ধী হলেন হরমুযান ভাবলেন , খলিফা ওমর (রাঃ) নিশ্চয়ই তার প্রানদন্ডের হুকুম দেবেন, না হয় অন্ততঃ তাকে গোলাম হিসাবে কোথাও বিক্রি করে দেবেন
কিন্তু হযরত ওমর (রাঃ) বিশেষ কর দেওয়ার ওয়াদায় হরমুযানকে ছেড়ে দিলেন
হরমুযান নিজ রাজ্যে ফিরে ওয়াদার কথা ভুলে গেলেনঅনেক টাকা-পয়সা ও বিরাটসৈন্য সমাবেশ নিয়ে তিনি আবার মুসলমানদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষনা করলেন তুমুল যুদ্ধ শুরু হলো অবশেষে হনমুযান পরাজিত হয়ে আবার মুসলমানদের হাতে বন্দী হলেনতাকে হযরত ওমর (রাঃ)
এর দরবারে হাজির করা হলে খলিফা জিজ্ঞেস করলেন,
: আপনিই কি কুখ্যাত নিহাওয়ান্দ শাসনকর্তা হরমুযান?
: হ্যাঁ খলিফা , আমিই নিহাওয়ান্দ এর অধিপতি হরমুযান
: আপনিই বার বার আরবের মুসলিম শাসনের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষনা করেছেন এবং বার বার অন্যায় যুদ্ধের কারন ঘটিয়েছেন?
: এ কথা সত্যি যে, আমি আপনার অধীনতা স্বীকার করতে রাজী হইনি, তাই বার বার যুদ্ধ করতে হয়েছে
: কিন্তু এ কথা কি মিথ্যে যে, আপনাকে পরাজিত ও বন্দী করার পরও আপনারপ্রস্তাবানুসারে সোলেহনামার শর্ত মতে আপনাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছেকিন্তু বার বার আপনি সোলেহনামার শর্ত ভংগ করেছেন এবং অন্যায় যুদ্ধে মুসলমানদেরকে ক্ষতিগ্রস্ত করেছেন?
: এ কথা মিথ্যা নয়
: আপনি কি জানেন আপনার কি সাজা হবে?
: জানি, আমার সাজা মুত্যু এবং আমি সেজন্য প্রস্তত আছি
: এবং এই মুহুর্তেই?
: তাও বেশ জানি
: তা হলে আপনার যদি কোন শেষ বাসনা থাকে তা প্রকাশ করতে পারেন
: খলিফা, মৃত্যুর আগে আমি শুধুই এক বাটি পানি খাব
খলিফার হুকুমে বাটিতে পানি এলহরমুযানের হাতে দেওয়া হলে খলিফা
বললেন,
: আপনি সাধ মিটিয়ে পানি খেয়ে নিন
: আমার শুধুই ভয় হয় পানি খাওয়ার সময়ই জল্লাদ না এক কোপে আমার
মাথাটা দেহ থেকে আলাদা না করে দেয়
: না হরমুযান, আপনার কোনই ভয় নেইআমি আপনাকে কথা দিচ্ছি, এই পানি খাওয়া শেষ না হওয়া পর্যন্ত কেউ আপনাকে কতল করবে না
: খলিফা, আপনি বলেছেন এই পানি পান করা শেষ না হওয়া পর্যন্ত কেউ আমায় কতল করবে না। ( বাটির পানি মাটিতে ফেলে দিয়ে) সত্যি
এ পানি আর আমি খাচ্ছি না এবং তাই আপনার কথা মত কেউই আমাকে আর কতল করতে পারবে না
চমকৃত হযরত ওমর (রাঃ) খানিক চুপ করে থেকে হেসে ফেললেন
বললেন, হরমুযান: আপনি সত্যিই একটি নয়া উপায় বের করেছেন নিজেকে রক্ষা করার জন্যেকিন্তু ওমরও যে আপনাকে কথা দিয়েছে তার
খেলাপ হবে নাআপনি আযাদ, আপনি নির্ভয়ে নিজ রাজ্যে চলে যান
হরমুযান চলে গেলেনঅল্পদিন পরে বহু সংখ্যক লোক নিয়ে আবার এলেনখলিফা হযরত ওমর (রাঃ) এর দরবারে হাজির হয়ে বললেন,
: আমিরুল মুমিনিন! হরমুযান আবার এসেছেএবার সে এসেছে
বিদ্রোহীর বেশে নয়, এক নব জীবনের সন্ধানেআপনি তাকে তার অনুচরবর্গসহ ইসলামে দীক্ষিত করুনহরমুযান আর বলতে পারলেন না
তার কন্ঠ রুদ্ধ হয়ে এলো
হযরত ওমর (রাঃ) দেখলেন, লৌহমানব হরমুযানের দুচোখ পানিতে হলহল করছে হরমুযানকে তিনি আলিংগন করলেন।

You may also like...

Skip to toolbar