Menu

নামাযের মধ্যে রাকয়াত নিয়ে সন্দেহ হলে তার মাসায়েল-মাওলানা মুহাম্মদ হেমায়েত উদ্দিন

নামাযের মধ্যে রাকয়াত নিয়ে সন্দেহ হলে তার মাসায়েল; ১। যদি নামাযের মধ্যে এরূপ সন্দেহ হয় যে, প্রথম রাকয়াত না কি দ্বিতীয় রাকয়াত? তাহলে যেদিকে মন ঝুঁকবে সে দিককে গ্রহণ করবে। যদি কোন এক দিক মন না ঝুঁকে তাহলে এক রাকয়াতই (অথ্যাত, কমটাই) ধরতে হবে। কিন্তু এই প্রথম রাকয়াতে বসে তাশাহহুদ পড়বে, কেননা হতে পারে প্রকৃতপক্ষে […]

READ MORE

গোঁপ, দাড়ির মাসায়েল-মাওলানা মুহাম্মদ হেমায়েত উদ্দিন

গোঁপ, দাড়ির মাসায়েল: ১। পুরুষের জন্য দাড়ি রাখা ওয়াজিব এবং অন্তত এক মুষ্টি লম্বা রাখা ওয়াজিব। দাড়ি মুড়ানো বা এক মুষ্টির কম রেখে ছাঁটা বা উপড়ানো হারাম। এক মুষ্টির চেয়ে লম্বা হলে তা ছেঁটে ফেলা যায়। এরূপ চতুর্দিক থেকে সমান করার জন্য কিছু কিছু ছেঁটে ফেলা যায়। ২। দাড়ি এক মুষ্টির চেয়ে বেশি লম্বা রাখা […]

READ MORE

জামাআতের মাসায়েল-মাওলানা মুহাম্মদ হেমায়েত উদ্দিন

জামাআতের মাসায়েলঃ ১। পাঁচ ওয়াক্ত ফরয নামায জামাআতের সাথে পড়া সুন্নাতে মুয়াক্কাদা। অনেক মুহাক্কিক উলামায়ে কেরামের মতে ওয়াজিব। বিনা ওজরে জামাআত তরক করা গোনাহ। যে ব্যক্তি বিনা ওজরে সর্বদা জামাআত তরক করে সে ফাসেক। ২। পাঁচ ওয়াক্তের ফরয নামাযে ইমাম ব্যতীত একজন মুক্তাদী হলেও জামাআত হয়ে যায়। চাই সে একজন সমঝদার নাবালেগ হোক বা মেয়েলোক […]

READ MORE

কোন কোন লোকদেরকে বা কোন কোন খাতে যাকাত দেওয়া যায় না-মাওলানা মুহাম্মদ হেমায়েত উদ্দিন

নিম্নলিখিত লোকদেরকে বা নিম্নলিখিত খাতে যাকাত দেয়া যায় না দিলে যাকাত আদায় হয় নাঃ ১। যার নিকট নেছাব পরিমান অর্থ/সম্পদ আছে। ২। যারা সাইয়্যেদ অর্থাৎ, হাসানী, হুসাইদী, আলাদী, জা’ফরী ইত্যাদি। ৩। যাকাতদাতার মা, বাপ, দাদা, দাদী, পরদাদা, পরদাদী, পরনানা, পরনানী ইত্যাদি উপরের সিঁড়ি। ৪। যাকাতদাতার ছেলে, মেয়ে, নাতি, নাতনি, নাতনি পোতা, পৌত্রী, ইত্যাদি নিচের সিঁড়ী। […]

READ MORE

যাকাত হিসাব করার তরীকা ও মাসায়েল -মাওলানা মুহাম্মদ হেমায়েত উদ্দিন

যাকাত হিসাব করার তরীকা ও মাসায়েলঃ ১। যে অর্থ/সম্পদে যাকাত আসে সে অর্থ/সম্পদের ৪০ ভাগের ১ ভাগ যাকাত আদায় করা ফরয। মূল্যের আকারে নগদ টাকা দ্বারা বা তা দ্বারা কোনো আসবাবপত্র ক্রয় করে তা দ্বারাও যাকাত দেয়া যায়। ২। যাকাতের ক্ষেত্রে চন্দ্র মাসের হিসাবে বতসর ধরা হবে। যখনই কেউ নেছাব পরিমান অর্থ/সম্পদের মালিক হবে তখন […]

READ MORE

আমানতের মাসায়েল -মাওলানা মুহাম্মদ হেমায়েত উদ্দিন

১। টাকা-পয়সা বা মাল-সামান আমানত রাখলে আমানতদারের উপর তার পূর্ণ হেফাজত করা ওয়াজিব। ২। কেউ টাকা-পয়সা আমানত রাখলে অবিকল সেই টাকা-পয়সাই পৃথকভাবে হেফাজত করে রাখা ওয়াজিব, নিজের টাকার সঙ্গে মিশানো এবং ঐ টাকা থেকে খরচ করা জায়েয নয়। এরূপ করতে হলে মালিক থেকে অনুমতি নিতে হবে। ৩। আমানতের মাল পূর্ন হেফাজত করা সত্ত্বেও নষ্ট হয়ে […]

READ MORE

পুরুষ ও নারীর মাহরাম -মাওলানা মুহাম্মদ হেমায়েত উদ্দিন

যাদের সঙ্গে নারীকে পর্দা করতে হয় না অর্থাৎ, যাদের সামনে নারীগণ যেতে পারেন তাদের একটি তালিকা নিম্নে প্রদান করা হলোঃ ১। নিজ স্বামী (যার নিকট স্ত্রীর কোনো অঙ্গের পর্দা নেই। তবে বিনা প্রয়োজনে বিশেষ অঙ্গ দেখা অনুত্তম)। ২। পিতা (আপন হোক বা সৎ। দুধ পিতাও এর অন্তর্ভূক্ত)। ৩। দাদা (দাদার পিতা বা আরও যত উপরে […]

READ MORE

পর্দার আহকাম -মাওলানা মুহাম্মদ হেমায়েত উদ্দিন

পর্দার আহকামঃ ১। শরীয়াতে গায়র মাহরাম পুরুষ বা নারীর সাথে পর্দা করা ওয়াজিব। ২। কোনো বেগানা নারীর প্রতি দৃষ্টিপাত করা পুরুষের জন্য হারাম। এমনিভাবে নারীর পক্ষেও কামভাব নিয়ে কোনো বেগানা পুরুষের প্রতি দৃষ্টিপাত করা হারাম। তবে অনিচ্ছাকৃতভাবে হঠাত যে দৃষ্টি পড়ে যায় তা মাফ; তবে সে দৃষ্টিকে দীর্ঘায়িত করা যাবে না। নারীদের চেহারাও পর্দার হুকুমের […]

READ MORE

দুয়া/মুনাজাতের আদব ও আমলসমূহ -মাওলানা মুহাম্মদ হেমায়েত উদ্দিন

(ক) দুয়া কবুল হওয়ার জন্য সর্বক্ষণ যা যা করনীয়ঃ ১। খাদ্য, পানীয়, পোশাক-পরিচ্ছেদ ও আয়-উপার্জন হালাল হওয়া। ২। পিতা-মাতার নাফরমানী থেকে বিরত থাকা। ৩। আমর বিল’ মারুফ ও নাহি আনিল মুনকার করা তথা ভাল কাজের আদেশ করা ও মন্দ কাজ থেকে বারণ করা। ৪। আত্নীয়দের সাথে সম্পর্ক ছিন্ন না করা। ৫। কোনো মুসলমানের সাথে অন্যায়ভাবে […]

READ MORE

ইমামের জন্য খাস মাসায়েল-মাওলানা মুহাম্মদ হেমায়েত উদ্দিন

মুক্তাদীর মাসলা মাসায়েল জানতে এখানে ক্লিক করুন। ১। উত্তম লেবাছ পরিধান করে নামায পড়ানো এবং পড়া উত্তম। ২। ইমাম ইমামতের নিয়ত করবেন। নতুবা ইমামতের ছওয়াব অর্জিত হবে না। ৩। ইমামের জন্য সম্পূর্ণ মেহরাবের মধ্যে দাঁড়ানো মাকরূহ তানযীহী। ৪। ইমাম প্রত্যেক উঠা-বসা ইত্যাদির তাকবির “ সামিয়াল্লাহু লিমান হামিদা” ও সালাম জোরে বলবেন। প্রয়োজনের চেয়ে খুব বেশি […]

READ MORE

কছমের কাফফারা-মাওলানা মুহাম্মদ হেমায়েত উদ্দিন

কছমের মাসলা/মাসায়েল জানতে এখানে ক্লিক করুন। ১। কছম ভঙ্গ করলে তার কাফফারা হল দশজন মিসকীনকে দু’বেলা পেট ভরে খাওয়ানো অথবা মিসকীনকে এক সের সাড়ে বার ছটাক (১ কেজি ৬৬২ গ্রাম) আটা বা তার মূল্য দেয়া। (পূর্ণ দুই সের দেয়া উত্তম। আর ধান চাউল দিলে গমের মূল্য হিসাবে দিতে হবে)। অথবা প্রত্যেক মিসকীনকে এই পরিমাণ কাপড় […]

READ MORE

কছমের মাসায়েল-মাওলানা মুহাম্মদ হেমায়েত উদ্দিন

কছমের কাফফারা জানতে এখানে ক্লিক করুন। ১। বিনা প্রয়োজনে কথায় কথায় কছম খাওয়া (শপথ করা) অন্যায় কাজ। ২। কছমের খেলাফ করলে বা খেলাফ হলে কাফফারা দেয়া ওয়াজিব। ৩। যদি কেউ বলে, আল্লাহর কছম বা খোদার কছম বা আল্লাহর বুযুর্গী ও বড়ত্বের কছম, আমি অমুক কাজ করব বা করব না, তাহলে কছম হয়ে যাবে, তার খেলাফ […]

READ MORE

মাছবূকের (যে প্রথম রাকয়াত থেকে জামাতে শরীক হতে পারেনি) নামাযের মাসলা-মাওলানা মুহাম্মদ হেমায়েত উদ্দিন

(যে মুক্তাদী ইমামের সঙ্গে প্রথম রাকাআত থেকে শরীক হতে পারেনি, শুরুর দিকে এক বা একাধিক রাকাআত ছুটে গিয়েছে, তাকে মাছবূক বলে। ) ১। ইমামের শেষ বৈঠকে মাছবূক তাশাহহূদ এমন ধীরে ধীরে পড়বে, যেন তার তাশাহহুদ শেষ হতে হতে ইমামের দুরুদ ও দুয়ায়ে মাছুরা শেষ হয়ে যায়। তবে আগেই মুক্তাদির তাশাহহুদ শেশ হয়ে গেলে তাশাহহুদের শেষ […]

READ MORE

মুক্তাদী’র জন্য খাস মাসায়েল-মাওলানা মুহাম্মদ হেমায়েত উদ্দিন

১। মুক্তাদী ইমামের পিছনে এক্তেদা করার নিয়ত করবে। এক্তেদার নিয়ত ব্যতীত মুক্তাদীর নামায সহীহ হয় না। ২। ইমামের তাকবীরে তাহরীমা- “আল্লাহু আকবার” শেষ হওয়ার পূর্বে মুক্তাদীর তাকবীর যেন শেষ না হয়। ৩। ইমামের তাকবীরে তাহরীমা শেষ হওয়ার পর সঙ্গে সঙ্গে মুক্তাদীর তাকবীরে তাহরীমা বলা উত্তম। ৪। ইমাম সূরা/কিরাত শুরু করলে মুক্তাদী ছানা পড়বে না। ৫। […]

READ MORE

শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত নামায পড়ার নিয়ম-মাওলানা মুহাম্মদ হেমায়েত উদ্দিন

(নামাযের মধ্যে যা যা করতে হবে এবং যেভাবে করতে হবে তার ধারাবাহিক বর্ণনা) ১। নামায পড়ার জন্য পবিত্র স্থানে দাঁড়ানো ফরয। ২। কেবলামুখী হয়ে দাঁড়ানো ফরয। ৩। পা দুটো সোজা কেবলামুখী করে রাখা সুন্নত। ৪। পায়ের মাঝখানে সামনে পিছনে ফাঁক রাখবে যাতে পা সোজা কেবলামুখী থাকে। ৫। দুই পায়ের মাঝখানে হাতের মিলিত চার আঙ্গুলের পরিমান […]

READ MORE

পোশাক পরিধানে প্রিয় নবীর আদর্শ

পোশাক পরিধানে সব সময় ডান দিক দিয়ে শুরু করা আর খোলার সময় বাঁ দিক দিয়ে শুরু করা সুন্নাত। (তিরমিজি : ১/৩০৬) পুরনো হলেও সব সময় পবিত্র ও পরিচ্ছন্ন কাপড় পরিধান করা উচিত। রাসুল (সা.) ইরশাদ করেন, ‘যার অন্তরে ন্যূনতম অহংকার আছে সে জান্নাতে প্রবেশ করবে না’ জীবনের সব ক্ষেত্রেই চাই সুন্নাতের অনুসরণ। এটিই আল্লাহকে পাওয়ার […]

READ MORE

হায়েয ও নেফাস উয়য়টার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য মাসায়েল-মাওলানা মুহাম্মদ হেমায়েত উদ্দিন

(নিম্নের মাসয়ালাগুলো হায়েয ও নেফাস উভয় অবস্থার জন্য প্রযোজ্য) ১। হাযেয, নেফাস অথবা অন্য যেকোনো কারণে যে নারীর ওপর গোসল ওয়াজিব হয়ে পড়েছে তার জন্য মসজিদে যাওয়া হারাম। সে কা’বা শরীফ তওয়াফ করতে পারবে না; কুরআন শরীফ পড়তে পারবে না; স্পর্শ করতে পারবে না। হ্যাঁ, যদি কুরআন শরীফের উপর জুযদান লাগানো থাকে অথবা রুমাল দিয়ে […]

READ MORE

ঈমান পরিপন্থি কিছু আধুনিক ধ্যান-ধারণা-মাওলানা মুহাম্মদ হেমায়েত উদ্দিন

১। জনগনকে সকল ক্ষমতার উৎস মানা, জনগণকে আইনের উৎস মানা ঈমান-পরিপন্থি। কেননা ইসলামী আদীদা-বিশ্বাসে আল্লাহকেই সর্বময় ক্ষমতার উৎস স্বীকার করা হয় এবং বিধান দেয়ার অধিকার একমাত্র আল্লাহর। ২। প্রচলিত গণতন্ত্রে জনগণকেই সকল ক্ষমতার উৎস এবং জনগণ কর্তৃক নির্বাচিত প্রতিনিধিদেরকে আইন বা বিধানের অথরিটি বলে স্বীকার করা হয়, তাই প্রচলিত গণতন্ত্র-এর ধারণা ঈমান-আকীকার পরিপন্থী। ৩। সমাজতন্ত্রে […]

READ MORE

সম্পদ উপার্জন ও ব্যয়ের নীতিমালা-মাওলানা মুহাম্মদ হেমায়েত উদ্দিন

সম্পদ উপার্জনের নীতিমালাঃ ১। সম্পদ হালাল ও পবিত্র হতে হবে। ২। হারাম, মাকরূহ ও সন্দেহপূর্ন (অর্থাৎ, যেখানে জায়েয বা নাজায়েয হওয়ার কোনো দিক স্পষ্ট নয়-এরুপ) পন্থায় সম্পদ উপার্জন করা থেকে বিরত থাকতে হবে। ৩। সম্পদ উপার্জনের কাজে লিপ্ত হয়ে কোনো ফরয বা ওয়াজিব বা সুন্নাত কাজে কোনো বিঘ্ন ঘটতে যেন না পারে। ৪। সম্পদ উপার্জন […]

READ MORE

যেসব অবস্থায় আযানের জওয়াব দেয়া উচিত নয়-মাওলানা মুহাম্মদ হেমায়েত উদ্দিন

১। নামাযরত অবস্থায়। ২। খুতবার সময়; জুমুআর খুতবা হোক বা বিয়ের খুতবা। ৩। হায়েয অবস্থায়। ৪। নেফাসের অবস্থায়। ৫। দ্বীনী ইলম বা শরীআতের মাসআলা- মাসায়েল শিখবার বা শিক্ষা দেয়ার সময়। কিছু কুরআন তিলাওয়াতের সময় আযান হলে তিলাওয়াত বন্ধ করে তার জওয়াব দেয়া উত্তম বলা হয়েছে। ৬। স্ত্রী সহবাস করা অবস্থায়। ৭। পেশাব-পায়খানার সময়। ৮। খানা […]

READ MORE

আযান ও ইকামতের জওয়াব প্রসঙ্গ-মাওলানা মুহাম্মদ হেমায়েত উদ্দিন

• আযান ও ইকামতের জওয়াব দেয়া মোস্তাহাব। নারী পুরুষ সকলের জন্যই আযানের জওয়াব দেওয়া মোস্তাহাব। যে ব্যক্তি মসজিদের মধ্যে রয়েছে তার জন্যও মুখে জওয়াব দেয়া মোস্তাহাব। পাক নাপাক সকলেরই জন্য আযানের জওয়াব দেয়া মোস্তাহাব। পাক নাপাক সকলেরই জন্য আযানের জওয়াব দেয়া মোস্তাহাব। অবশ্য ঋতুবতী মহিলা ও নেফাসওয়ালী মহিলার জন্য আযানের জওয়াব দেয়ার হুকুম নেই। • […]

READ MORE

কাযা নামাযের মাসায়েল-মাওলানা মুহাম্মদ হেমায়েত উদ্দিন

• কারও কোনো নামায ছুটে গেলে স্মরণ আসা মাত্রই কাযা পড়া ওয়াজিব। বিনা ওজরে কাযা করতে বিলম্ব করা পাপ। • কাযা নামায পড়ার জন্য কোনো নির্দিষ্ট সময় নেই- হারাম ও মাকরূহ ওয়াক্ত ছাড়া যেকোনো যময় নামায পড়া যায়। • কারও যদি এক, দুই, তিন, চার বা পাঁচ ওয়াক্ত নামায কাযা হয় এবং এর পূর্বে আর […]

READ MORE
Skip to toolbar